আদিম গুহার অন্ধকার দেওয়ালে
পৃথিবীর প্রথম শিল্পীর আঁচড়ে মিশে আছে বলিরেখা ।
অন্দিতে সন্ধিতে গাঁথা অভিঞ্জতা নদী
অসম্ভবের কাহীনি গর্ভে নিয়ে
বয়ে যায় অজানা গন্তব্যে ।
নদী মেশে নদীতে| শেষ নেই কোনো ।
মাঝে মধ্যে চলকে ওঠে অভিঞ্জতা ।
ভিজিয়ে দেয় পাড়ের কালো বালি ।
জটিল-কাদা-কাদা-সোঁদাগন্ধ ভরা ।
পাতাঝাঁঝি, প্ল্যাঙ্কটন আর সবুজ
সৃষ্টি করে থমথমে রহস্য ।
পিচ্ছিলতার কারণে রহস্য-সংক্রমণ হয় ।
জরা আর বলিরেখার এখানেই মিল ।
দুজনে জবুথুবু বসে দূরে চেয়ে থাকে নিষ্পলক ।
একটা ছবি ক্যানভাসে ফুটে ওঠে ।
সূর্যাস্তের সূর্য ডোবা

অথবা- শেষ সূর্যরশ্মি ।

Tagged with →  
Share →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *